টানা ২৫ দিন জেডিসি পরীক্ষার্থীর সর্বনাশ করলো ৩ জন

সোমবার, নভেম্বর ৪, ২০১৯ ১:১৯ অপরাহ্ণ
Share Button

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানার কলারগাঁও গ্রামে এক দিনমজুরের কন্যা জেডিসি পরীক্ষার্থীকে (১৩) বাড়ি থেকে অপহরণ করে নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে পালাক্রমে সর্বনাশ করার অভিযোগ উঠেছে।
শুক্রবার ধাইরগাঁও মাদ্রাসার সামনে ওই জেডিসি পরীক্ষার্থীকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া গেছে।
ভুক্তভোগীর পরিবার ও পাগলা থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দাইরগাঁও দাখিল মাদ্রাসার জেডিসি পরিক্ষার্থী ওই ছাত্রীকে মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে প্রায় কু-প্রস্তাব দিত দাইরগাঁও গ্রামের দুই সন্তানের জনক বিপ্লব মেকার। মাদ্রাসাছাত্রী বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানায়। পরে মাদ্রাসাছাত্রীর বাবা বিপ্লব মেকারকে তার মেয়েকে উত্যক্ত করতে নিষেধ করে।
প্রভাবশালী বিপ্লব মেকার ক্ষিপ্ত হয়ে ওয়াশির খাঁ ও শারফুল শেখ নামে আরও দুইজনকে সঙ্গে নিয়ে গত ৬ অক্টোবর রোববার সন্ধ্যায় ছাত্রীটিকে বাড়িতে একা পেয়ে জোর করে একটি সিএনজিতে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ঘটনার পরপরই মাদ্রাসাছাত্রীর পরিবার এ বিষয়ে পাগলা থানায় একটি জিডিও করে।

গত ৬ অক্টোবর থেকে বিপ্লব মেকার ও তার দুই সঙ্গী ওই মাদ্রাসাছাত্রীটিকে ঢাকা এবং ময়মনসিংহের বিভিন্ন স্থানে আটকে রেখে একাধিকবার সর্বনাশ করে। পরে শুক্রবার ভোর রাতে ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে দাইরগাঁও মাদ্রাসার সামনে প্রায় অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে যায়। ফজরের নামাজের সময় মুসল্লিরা দেখতে পেয়ে মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধার করে তার বাড়িতে নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীর দিনমজুর বাবা কাঁদতে কাঁদতে বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘আমি অসহায়, টাকা পয়সা নাই কিন্তু আমার মেয়েকে যারা নষ্ট করেছে তাদের বিচার চাই।’
স্থানীয়রা জানিয়েছে, এদের নামে আগেও নারী নির্যাতনের মামলা আছে। প্রভাবশালী হওয়ায় এদের কেউ কিছু করতে পারে না।
পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহিনুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে এবং জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ভিকটিমের মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রেসটিভি নিউজ

Share Button